গোমাংস ও শুয়োরের মাংস ডেলিভারি করব না, হাওড়ায় ধর্মঘট জোমাটো কর্মীদের

0
2


নিজস্ব প্রতিবেদন: বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না জোমাটোর। এবার রাইডারদের বিক্ষোভের মুখে পড়ল সংস্থা। ইদের আগে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট ঘোষণা করেছেন রাইডাররা। তাঁদের দাবি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে গরু ও শুয়োরের মাংস ডেলিভারি করবেন না তাঁরা।   

হাওড়ার ডেলিভারি এক্সিকিউটিভদের দাবি, তাঁদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে গোমাংস ও শুয়োরের মাংস ডেলিভারি করতে বাধ্য করছে জোমাটো। তাদের কথা শুনছে না সংস্থা। তার প্রতিবাদে সপ্তাহখানেক ধরে অনির্দিষ্টকালীন ধর্মঘট করছেন তাঁরা। 

জোমাটোর ডেলিভারি এক্সিকিউটিভদের পাশে দাঁড়িয়েছেন রাজ্যের সেচমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, ‘কাউকে জোর করে ধর্মবিরোধী কাজ করাতে পারে না সংস্থা। এটা ঠিক নয়। বিষয়টি জানতে পেরেছে। এনিয়ে পদক্ষেপ করব।’ 

জোমাটোর মুসলিম ডেলিভারি বয়ের হাত থেকে এক গ্রাহকের খাবার নিতে অস্বীকার করায় বিতর্ক সৃষ্টি হয় দিন কয়েক আগে। মধ্যপ্রদেশের জবলপুরের বাসিন্দা অমিত শুক্লা জোমাটোতে খাবারের অর্ডার দিয়েছিলেন। তাঁকে খাবার পাঠানোর দায়িত্ব অহিন্দুকে দিয়েছিল জোমাটো। এরপরই অমিত শুক্লা টুইটারে লেখেন, ‘হিন্দু রাইডার না দেওয়ায় খাবারের অর্ডার বাতিল করলাম। জোর করে ডেলিভারি দিতে পারেন না। ওরা অস্বীকার করায় রিফান্ডও চাইনি’। এরপরই ওই গ্রাহককে জোমাটো জানায়, ‘খাবারের কোনও ধর্ম নেই। এটাই ধর্ম।’ চাননি এক গ্রাহক। এরপর জোমাটো তাঁকে জানিয়ে দেয়,’খাবারের কোনও ধর্ম নেই। এটাই ধর্ম।’ এরপরই জোমাটোর বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ তোলেন নেটিজেনরা। একটি টুইট শেয়ার করেন তাঁরা। তাতে দেখা যাচ্ছে, হালাল মাংস না পাওয়ায় সংস্থাকে অভিযোগ করেছেন এক গ্রাহকরা। তাঁকে আশ্বস্ত করছে জোমাটো। নেটিজেনদের ওই অংশের প্রশ্ন, হালাল খাবারের বেলায় তো জোমাটো বলছে না, খাবারই ধর্ম। অন্যক্ষেত্রে ভিন্ন কেন? এর পাশাপাশি হালাল বা নন-হালাল আলাদা করে খাবারই চিহ্নিত করে কেন সংস্থা?

আরও পড়ুন- দ্বিচারিতার অভিযোগে উবর ইটস-জোমাটো অ্যাপ ডিলিট করে প্রতিবাদ নেটিজেনদের একাংশের





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here