বিরল ক্যান্সার সারিয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞানে নজির কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের

0
52


নিজস্ব প্রতিবেদন: মিরাকেলই বটে! ফুসফুস ক্যান্সারের অন্তিম পর্যায়ে পৌঁছেও মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এলেন সোমা। ক্যান্সার চিকিৎসায় কার্যত নজির গড়ল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, কিছুদিন আগেই বিরল এক ফুসফুসের ক্যান্সার (Non squamous lung cancer)ধরা পড়ে হাওড়া বাগনানের বাসিন্দা সোমা দোলুই-এর। ততদিনে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়েছে শরীরের হাড় থেকে শুরু করে লিভারে। তবু হাল ছাড়েননি চিকিৎসকরা। শুরু হয় ওষুধ প্রয়োগ। ক্রিজোটিনিব গ্রুপের ওষুধ প্রয়োগ করে ৩ মাস টানা ওষুধ চলার পর ৫০ শতাংশ সেরে ওঠেন সোমা। যা দেখে কার্যত অবাক চিকিৎসকরাও। 

বিভাগীয় প্রধান শিবাসিস ভট্টাচার্য বলেন, “৬ মাস ক্রিজোটিনিব গ্রুপের ওষুধ প্রয়োগ করার পর হাড়, লিভারে ছড়িয়ে পড়া ক্যান্সার পুরোটাই সেরে গিয়েছে। ফের যাতে সোমার শরীরে ক্যান্সার ফিরে না আসে তার চেষ্টা চালাচ্ছি আমরা।” হাসপাতাল সূত্রে খবর, এহেন বিরল ক্যান্সারের চিকিৎসা বা ওষুধের খরচ ছিল ব্যয়বহুল, যার ব্যয়ভার রোগীর পরিবারের পক্ষে বহন করা সম্ভব ছিল না। এরপরই সোমার চিকিৎসার জন্য হাসপাতালের তরফে স্বাস্থ্যভবনের সঙ্গে কথা বলা হয়। ৯ লক্ষটাকা বরাদ্দ করে স্বাস্থ্যভবন। সব মিলিয়ে চিকিৎসকদের চেষ্টায় এবং স্বাস্থ্য দফতরের সহযোগীতায় মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসেন সোমা দোলুই। যা এখনও বিশ্বাসই করতে পারছেন না সোমা এবং তাঁর পরিবার। 

আরও পড়ুন: জরায়ুতে নয়, সন্তান বড় হচ্ছিল মায়ের পাকস্থলী, লিভারের ফাঁকে, কলকাতায় ‘ওয়ান্ডার বেবি’!

অন্যদিকে ক্যান্সার চিকিৎসায় মাইলস্টোন গড়ে বিশ্বের দরবারে আলোচনার শীর্ষে পৌঁছে গিয়েছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। সোমার ক্যান্সার চিকিৎসার ‘কেস স্টাডি’ গিয়েছে আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নালেও। 





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here