নারী থেকে দুর্নীতি- একাধিক অভিযোগে ছাঁটাই দক্ষিণবঙ্গে সঙ্ঘের প্রান্ত প্রচারক

0
81


অঞ্জন রায়

দক্ষিণবঙ্গে প্রান্ত প্রচারকের পদ থেকে বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়কে অপসারিত করল রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ। বিজয়ওয়াড়ায় প্রতিনিধি সভার বৈঠকে বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়কে অপসারণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। নতুন পদে কাকে আনা হবে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। সূত্রের খবর, সরসঙ্ঘচালক মোহন ভাগবতের এক ঘনিষ্ঠকে দক্ষিণবঙ্গের প্রান্ত প্রচারকের দায়িত্ব আনা হতে পারে। 

বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে স্বজনপোষন, দুর্নীতি, পদের অপব্যবহার, নারীঘটিত একাধিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠছিল। দীর্ঘদিন ধরে এমন অভিযোগ জমা হচ্ছিল নাগপুরে। সঙ্ঘের মতো শৃঙ্খলাবদ্ধ সংগঠনে একাধিক অভিযোগ উঠলেও বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়ের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। সঙ্ঘের অন্দরের খবর, মোহন ভাগবতের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়। আর সেই প্রভাব খাটিয়ে ব্যক্তিগত স্বার্থসিদ্ধি করেছেন তিনি। এমনকি রাজ্য বিজেপির অন্দরেও নাক গলানোর চেষ্টা করেছেন দক্ষিণবঙ্গের প্রাক্তন প্রান্ত প্রচারক। তাঁর বিরুদ্ধে সর্বভারতীয় নেতৃত্বের কাছে অভিযোগ করেছিল বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বও।           

কিন্তু নারীঘটিত মামলায় জড়ানোর পর আর শেষরক্ষা হল না। বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়কে সঙ্ঘের সমস্ত পদ থেকেই অপসারিত করা হল। বলতে গেলে, সঙ্ঘ থেকে কার্যত ছাঁটাই হলেন বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়। যদিও স্বেচ্ছায় পদ ছেড়ে দিয়েছে বলে দাবি করেছেন বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়। বার্তা দিয়েছেন,’দীর্ঘ ৫ বছর প্রান্ত প্রচারক ও ৪ বছর প্রচারক হিসেবে কাজ করেছি। শারীরিক ও মানসিক কারণে সমস্ত দায়িত্ব থেকে মুক্তি নিয়েছি। কিছুদিন অধ্যয়ন করার কথা ভেবেছি। প্রান্ত প্রচারক হিসেবে কোথাও যেন করে উঠতে পারছিলাম না, যেটা মনকে সবসময় খোঁচা দিত। প্রচারকের দায়িত্বের সঙ্গে ন্যায় করতে পারছিলাম না। কিন্তু সরেও দাঁড়াতে পারছিলাম না। একান্তে অধ্যয়ন করার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছি সরসঙ্ঘচালককে। সাংগঠনিক অনুষ্ঠান আর করব না। আগে থেকে নির্ধারিত কর্মসূচি বাতিল করে দেবেন’।               

সূত্রের খবর, লোকসভা ভোটের আগে থেকেই বিদ্যুৎ মুখোপাধ্যায়কে সরানো নিয়ে চলছিল গুঞ্জন। কিন্তু ভোটের আগে সাংগঠনিক রদবদল করতে চায়নি সঙ্ঘ। ভোট শেষ হওয়ার পরই বিদ্যুতের উপরে নেমে এল কষাঘাত।   

আরও পড়ুন- ১০৭ জন বিধায়ক যোগ দেবেন বিজেপিতে, কাগজ দেখিয়ে দাবি মুকুল রায়ের 

 





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here